ইতিহাস পরিক্রমায় আবুতোরাব ফাজিল স্নাতক মাদ্রাসা

চটগ্রামের প্রবেশদ্বার খ্যাত মীরসরাই উপজেলার স্বনামধন্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠান আবুতোরাব ফাজিল মাদ্রাসা এতদঞ্চলের লোকদের নিকট একটি সুপরিচিত নাম। ১৯১৭ সালে প্রতিষ্ঠিত বিদ্যাপীঠ স্বরূপ যে জ্ঞান বৃক্ষের বীজ বপন করা হয়েছিল তা আজ এক মহীরুপ ধারণ করেছে। সবুজ- শ্যামল পল্লী অঞ্চলের অবহেলিত লোকদের কুসংস্কারমুক্ত ও দ্বীনি শিক্ষার মহান দায়িত্বকে সামনে রেখে এ বিদ্যাপীঠ যাত্রা শুরু করে। সু-দীর্ঘ কাল ধরে জ্ঞানের আলোয় আলোকিত করার মধ্যে দিয়ে আজ এটি শতবর্ষের দ্বারপ্রান্তে এসে পৌঁছেছে। যদিও এর আনুষ্ঠানিক যাত্রা শুরু হয়েছিল ১৯১৭ সালে প্রকৃতপক্ষে তৎপূর্বেও এখানে অনানুষ্ঠানিক দ্বীনি শিক্ষার কার্যক্র চলছিল। মাদ্রাসার প্রতিষ্ঠাতা মোহতামিম হিসেবে পরিচিত মরহুম মাওলানা মোহাম্মদের রহমান তৎকালীন ইসলামী ব্যক্তিও মাওলানা মূলকুতুর রহমান ও মাষ্টার আব্দুল কুদ্দুছ সাহেবের সহযোগিতায় এখানে দ্বীনি শিক্ষা প্রদানের ব্যবস্থা করেন। তারা মাদ্রাসার জন্য কিছু জমি খরিদ করেন এবং তৎকালীন জমিদার শায়েস্তাখান মাদ্রাসার  জন্য কিছু জায়গা দান করেন। পরবর্তীতে মরহুম আলহাজ্ব গণি আহম্মদ ভূঞাঁও এই মাদ্রাসার জন্য জায়গা দান করেন। প্রতিষ্ঠার পর থেকে ১৯৩৪ সাল পর্যন্ত প্রতিষ্ঠাতা মোহতামিম হিসেবে মোহাম্মদের রহমান দায়িত্ব পালন করেন। ১৯৩৪ সাল থেকে ১৯৩৮ সাল পর্যন্ত মাওলানা ছদিকের রহমান পরবর্তী মোহতামিমের দায়িত্ব পালন করেন। ১৯৩৯ সাল থেকে ১৯৪৫ সাল পর্যন্ত মাদ্রাসার প্রধান হিসেবে দায়িত্বভার গ্রহণ করেন মরহুম মোখলেছুর রহমান। এর পর দুই বছর মাদ্রাসার মোহতামিমের দায়িত্ব পালন করেন গজারিয়া নিবাসী মরহুম আব্দুল আহাদ। এর পর মাদ্রাসাকে যিতি পুনঃপ্রতিষ্ঠা করেছেন, বলা যায় প্রাণ দান করেছেন তিনি হলেন উপজেলার দক্ষিণ মঘাদিয়ার মরহুম মাওলানা মনছুর আহমদ (রহঃ) ১৯৬৩ সালে প্রলয়ংকরী ঘুর্ণিঝড়ে মাদ্রাসার অবকাঠামো নষ্ট ও একরকম নিশ্চিহৃ হয়ে যায়। তিনি অতি কষ্টে মাদ্রাসার  পুনঃনির্মাণ করেন এবং দ্বীনি শিক্ষার কার্যক্রম চালু রাখেন। ১৯৪৮ সাল থেকে ১৯৯০ সাল পর্যন্ত সুদীর্ঘ ৪২ বছর মাদ্রাসার সুপার ও অধ্যক্ষ পদে তিনি দায়িত্ব পালন করেন। এর মধ্যে ১৯৬৪ সালে ফাজিল মঞ্জরী লাভের মাধ্যমে এটি ফাজিল উন্নত হয়। উল্লেখ্য যে, পূর্বে এর নাম ছিল আবুতোরাব সিনিয়র মাদ্রাসা। ১৯৯০ সাল থেকে ২০০০ সালের আগষ্ট পর্যন্ত দায়িত্ব পালন করেন সাহেরখালী নিবাসী মরহুম মাওলানা নূরুল বারী (রহঃ)। বর্তমানে মাদ্রাসার অধ্যক্ষ হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন মাওলানা মোহাং শফিকুল ইসলাম নিজামী। তিনি ২০০০ সালের আগষ্ট মাস থেকে অদ্যবধি নিষ্ঠার সাথে দায়িত্ব পালন করে আসছেন।